অর্থনৈতিক সংকটে শ্রীলঙ্কা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

চরম অর্থনৈতিক সংকটে ভুগছে শ্রীলঙ্কা। খাবার থেকে শুরু করে জ্বালানি পর্যন্ত নিত্যপ্রয়োজনীয় সবকিছুর আকাশছোঁয়া দাম পুরো শ্রীলঙ্কাজুড়ে।

শ্রীলঙ্কার দুর্বল অর্থব্যবস্থা এবং কোভিড-১৯ মহামারীর ফলে দেশটির পর্যটন শিল্প এবং বিদেশি রেমিট্যান্স ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় এর অর্থনীতিতে বিপর্যয় নেমেছে বলে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলোতে উঠে এসেছে। গত ফেব্রুয়ারির তথ্য মতে, দেশটিতে বৈদেশিক মুদ্রা সংরক্ষিত রয়েছে ২.৩১বিলিয়ন ডলার। কিন্তু, বছর শেষে চার বিলিয়ন ডলার ঋণ পরিশোধ করতে হচ্ছে দেশটিকে।

শ্রীলঙ্কার সাধারণ জনগণের জন্য প্রতিদিনের কাজগুলো করা এখন কঠিন হয়ে পড়েছে। এই চরম আর্থিক বিপর্যয়ের প্রভাবে নাজুক হয়ে পড়েছে সেখানকার নাগরিকদের জীবন।

শ্রীলঙ্কার মিনুওয়ানগোডা শহরের থুসিথা হাদারাগামা নামে এক ব্যক্তি ৫০০০০ রুপিতে দুই স্কুল পড়ুয়া সন্তানসহ পাঁচজনের সংসার নিয়ে খুবই কষ্টে জীবনযাপন করছেন। হাদারাগামার মতো অন্যদের পরিবারেও দেখা দিয়েছে অর্থনৈতিক ভোগান্তি। হাদারাগামাকে মোঃটরসাইকেলে তেল ভরতে এখন দীর্ঘসময় লাইনে ব্যয় করতে হচ্ছে এবং দ্বিগুণ মূল্যে পেট্রোল কিনতে হচ্ছে। তার স্ত্রী বারুনি পরিবারের জন্য পূর্বের তুলনায় রান্নার পরিমাণ কমিয়ে দিয়েছেন।

শ্রীলঙ্কার ৪৩ বছর বয়সী একজন ড্রাইভারের কথা উঠে এসেছে বিবিসিতে। সেখানে তিনি বলেন, পুনরায় দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় আমি অল্প পণ্যদ্রব্য কিনছি। আগে আমরা যতটুকু খেতাম এখন তার অর্ধেক খেতে হবে।

কলম্বো থিঙ্ক-ট্যাঙ্ক অ্যাডভোকাটা ইনস্টিটিউট এর চিফ অপারেটিং অফিসার ধননাথ ফার্নান্দো বলেন, ডলারের ঘাটতিই এই স্বল্পতার কারণ, পণ্যের নয়।

গত সপ্তাহে শ্রীলঙ্কার সরকার জানিয়েছে, এই সমস্যা নিরূপণের জন্য তারা আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের সাথে বৈঠকে বসবে। বর্তমানে এই সংকট দূর করতে ভারত ও চীনের কাছেও সহায়তা চেয়েছে শ্রীলঙ্কা।

/জান্নতুন/

সর্বশেষ

Leave a Reply