Monday, January 25, 2021

একই অ্যাপে খেলা, বিয়ে, বন্ধুত্ব

নাজিমুল হক সানি

মুঘল সম্রাট আকবর প্রায়ই লুডু খেলতেন তার রাণীদের সাথে। আকবরের শখের এই লুডু খেলাকে মোবাইলের পর্দায় নিয়ে এসেছে ভারতীয় গেম ডেভলপার প্রতিষ্ঠান ‘গেমবেরি ল্যাবস’।
বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, সৌদি আরবে মোবাইল গেমটি বেশ জনপ্রিয়। এই লুডু স্টারেই হচ্ছে খেলা, বন্ধুত্ব এমনকি জীবনসঙ্গীও খুঁজে পাচ্ছেন কেউ কেউ।
২০১৭ সালে প্রথম লুডু স্টার যুক্ত হয়েছিল গুগল প্লে স্টোরে। পরের মাসেই ৫০ লাখ ডাউনলোড এবং একদিনে সর্বোচ্চ ২৮ হাজার ডাউনলোড হওয়ার রেকর্ডও ছুঁয়েছিল গেমটি। শাহরুখ খান, আনুশকা শর্মারাও বুঁদ হয়েছিলেন এই ভার্চুয়াল লুডুর বোর্ডে।
তিন মাসের মধ্যেই বিপদে পড়ে এর মালিকানা প্রতিষ্ঠান। তথ্য চুরির অভিযোগে গুগল তাদের প্লে স্টোর থেকে সরিয়ে নেয় লুডু স্টার।
করোনায় ঘরবন্দী মানুষদের কাছে পুনরায় জনপ্রিয়তা পাচ্ছে লুডু স্টার । ভারতীয় গেম ডেভলপার প্রতিষ্ঠান ‘গেমবেরি ল্যাবস’ আবারো নিয়ে এসেছে গেমটি। ৪৩ মেগাবাইট খরচ করলেই গুগল প্লে স্টোরে পাওয়া যাচ্ছে লুডু স্টার। ইতোমধ্যেই এক কোটিরও বেশিবার ডাউনলোড করা হয়েছে গেমটি।
গেমটিতে বাস্তবের সাথে মিলিয়ে তৈরি করা হয়েছে লুডুর ডাইস এবং বোর্ড । রয়েছে আসল বোর্ড গেমের মতোই সিঙ্গেল ডাইস, ছক্কা এবং রঙিন ঘর।
ফেসবুক প্রোফাইল ব্যবহার করে ফেসবুকের বন্ধুদের সাথে খেলা যায় লুডু স্টার। তবে কেউ চাইলে গেস্ট মোডেও খেলতে পারেন। খেলার পাশাপাশি চ্যাট করার সুযোগও রয়েছে লুডুস্টারে।
খেলায় জিতলে জমা হয় কয়েন। সাথে থাকে জেমস ও অন্যান্য ফিচার। এসব জেমস আর কয়েন ব্যবহার করে বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা পাবেন গেমাররা।
তবে সাধারণ লুডু খেলার চেয়ে গেমটিতে কয়েকটি বাড়তি ফিচার যুক্ত করা আছে। যেমন- গুটি চূড়ান্ত ঘরে পৌঁছালে বা প্রতিদ্বন্দ্বীর গুটি কাটলে বোনাস হিসেবে একটি বাড়তি চাল দেয়া যায়। ডাইসে ওঠা নম্বর পছন্দ না হলে পুনরায় চাল দেয়ার সুবিধাও রয়েছে।
লুডুস্টারের মাধ্যমে অনেকের মধ্যে বন্ধুত্ব ও বিয়ে হবার মতো খবর উঠে এসেছে ভারতীয় বিভিন্ন গণমাধ্যমে। আবার অতিরিক্ত লুডুস্টার খেলার জন্য পরিবারিক কলহ, মানসিক সমস্যার মতো ঘটনাও চোখ এড়ায়নি গণমাধ্যমের।
তবে সময় কাটানোর জন্য করোনার এই ঘরবন্দী মুহূর্তে লুডুস্টারকেই আপন করে নিয়েছে অনেক মানুষ।

 

সর্বশেষ

Leave a Reply