এবার অনলাইন পরীক্ষার কথা ভাবছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়

করোনা মহামারী পরিস্থিতিতে দেশের শিক্ষা কার্যক্রম গতিশীল রাখতে অনলাইন পরীক্ষা পদ্ধতিকে বৈধতা দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। গত ২৪ মার্চ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের (মাউশি) সচিব মো. মাহবুব হোসেনের সভাপতিত্বে আয়োজিত এক সভায় দেশের মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের শ্রেণি এবং পাবলিক পরীক্ষা অনলাইনে আয়োজনের জন্য সুপারিশ করতে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর নেহাল আহমেদকে সভাপতি করে একটি কমিটি করা হয়েছে।

অন্যদিকে, বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের পরীক্ষাগুলো অনলাইন মাধ্যমে গ্রহণের বিষয়ে সুপারিশ করতে ইউজিসির সদস্য প্রফেসর ড. দিল আফরোজা বেগমকে সভাপতি করে আরেকটি কমিটি করা হয়েছে। কমিটিগুলো দেশে-বিদেশে আয়োজিত বিভিন্ন অনলাইন পরীক্ষাসমূহ পর্যালোচনা করে স্বল্প ও দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা প্রণয়ন করে ১২ এপ্রিলের মধ্যে মন্ত্রণালয়ে দাখিল করবে।

এ বিষয়ে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন বলেন, দেশে দুর্যোগকালীন পরিস্থিতিতে অনলাইন ব্যবস্থার মাধ্যমে কীভাবে গ্রহণযোগ্য পরীক্ষা আয়োজন করা যায়, সে বিষয় নিয়ে আমরা কাজ শুরু করেছি। এ বিষয়ে দুটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির কাছে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের শ্রেণি ও পাবলিক পরীক্ষা এবং বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের বিভিন্ন পরীক্ষা অনলাইনে গ্রহণের বিষয়ে সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব চাওয়া হয়েছে। তাদের মতামত পাওয়ার পর চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সূত্র থেকে জানা যায়, গত বছরের ২৭ আগস্ট মন্ত্রিপরিষদ সচিবের সভাপতিত্বে ‘জাতীয় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি নীতিমালা- ২০১৮’-এর আওতায় গৃহীত কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়ন, পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন কমিটির দ্বিতীয় সভায় মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ এবং এটুআইকে যৌথভাবে এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের দায়িত্ব দেয়া হয়। যার ধারাবাহিকতায় গত বছরের ৩ নভেম্বর শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিবের (প্রশাসন ও অর্থ) সভাপতিত্বে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়, বিভাগ, দফতর/সংস্থা, এটুআই ও বুয়েটের প্রতিনিধি নিয়ে গঠিত কমিটির সদস্যরা সভা করে প্রতিবেদন দাখিল করে।

প্রতিবেদন পর্যালোচনার জন্য গত ২৪ মার্চ সভা ডাকা হয়। গত বছরের ১৭ মার্চ থেকেই দেশে সকল ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ আছে করোনা মহামারীর জন্য। পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়ায় এখন পর্যন্ত দফায় দফায় ছুটি বাড়ানো হচ্ছে। শিক্ষা কার্যক্রমকে গতিশীল করতেই তাই এবার অনলাইনে পরীক্ষার পরিকল্পনা শুরু করছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

/অনন

সর্বশেষ

Leave a Reply