এভাবেও ফিরে আসা যায়

অনন মজুমদার
গ্রিক মিথের ফিনিক্স পাখির অস্তিত্ব বাস্তবে নেই তা সত্যি। কিন্তু নিজের শেষ দেখে ফেলা তাসকিনের এমন দারুণ ফিরে আসা যেন ক্রিকেটের আকাশে ফিনিক্স পাখির মতোই।
আন্তর্জাতিক ক্রিকেট প্রথম তাকে চেনে ২০১৪ সালেই টি-২০ বিশ্বকাপে। তাও আবার ইঞ্জুরির কারণে খেলতে না পারা মাশরাফির পরিবর্তে। যে কি না তার আইডল, স্বপ্নের মানুষের বদলি। এরপর থেকেই বাংলার মাটিতে গড়া এ তাসকিন গতির ঝড় তুলে এসেছেন বিশ্বক্রিকেটের মঞ্চে।
এভাবেই ঝড়ের বেগে নিজেকে জাতীয় দলের জন্য প্রমাণ করেন। জায়গা করে নেন তখনকার বাংলাদেশ দলের অভিজ্ঞ দুই পেসার মাশরাফি ও রুবেলের সাথে। সাথে ২০১৫ বিশ্বকাপে সাকিব-মাশরাফি-রুবেলকে পাশ কাটিয়ে হয়ে যান দলের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী।
তবে এই সুখের দিন বেশিদিন দীর্ঘস্থায়ী হয়নি। তাসকিনকে দেখতে হয় এক কালো অধ্যায়। প্রথমে অবৈধ বোলিং একশনের অভিযোগে নিষেধাজ্ঞা পান আইসিসি থেকে। নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফিরে আসলেও ধার কমে যায় বোলিংয়ে। ভোঁতা ওই বোলিং যেন ফিনিক্সের মিথ, ছিল কিন্তু নেই। অনিয়মিত হয়ে পড়েন দল থেকে।
পরিসংখ্যান অনুসারে, ২০১৫ সাল পর্যন্ত যে যে তাসকিন ২৬.৮৫ গড়ে ও ৫.৫২ ইকোনোমি রেটে ২১ উইকেট শিকার করেন, পরের মৌসুমে সে গড় বেড়ে হয় প্রায় ৩৫ সাথে ইকোনমি সাড়ে ছয়। পিঠের চোটটাও ফিরে এসে জাতীয় দলের সাথে দূরত্ব সৃষ্টি করে দেয়।

এরপর থেকে চোট মুক্ত থাকলেও দলে হয়ে পড়েন অনিয়মিত। স্পিডস্টার তাসকিনের গতিও নেমে আসে ঘণ্টায় ১৩০ কি.মি. এর ঘরে। ২০১৭ সালে দ. আফ্রিকা সফরে খেললেও ছিলেন না আগের তাসকিন। আবার পড়েন চোটে, হারান জায়গা।

২০২০ এর শুরুতে করোনার ধাক্কা লাগে সারা বিশ্বে। এ সময় সাময়িক বন্ধ থাকে সকল ধরণের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট। আর এমন একটা সময়কেই নিজের জন্য বেছে নেন তাসকিন। নিজের সর্বোচ্চটা দিয়ে গড়ে তোলেন নিজেকে।
বিভিন্ন সময় গণমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাৎকারগুলোতে তিনি নিজের ফিটনেস ঠিক করার বিষয়টাকে গুরুত্ব দিয়েছেন। করোনার সময়টাকে উপযুক্তভাবে ব্যবহার করার চেষ্টা করেছেন তিনি। তাকে এ সময় বেশ সাহায্য করেন কোচ মাহবুব আলী।
এরপর ২০২১ এর মে তে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে দেখা যায় সেই পুরনো ফিনিক্স পাখিকে। যে ভয়ংকর সুইং আর গতিতে নাকানিচুবানি খাইয়েছে প্রতিপক্ষকে। তার দুই হাত ছড়িয়ে জানান দিয়েছে নতুন আগমনের।
সেই তাসকিন ফিনিক্স পাখি হয়ে দ্যুতি ছড়িয়ে যাচ্ছেন সোনা-হীরার খনির দেশ দক্ষিণ আফ্রিকার আকাশে, প্রোটিয়াদের যমদূত হয়ে।
তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের শেষ ম্যাচে ৫ উইকেটসহ সিরিজে সর্বোচ্চ ৮ উইকেট নিয়ে সিরিজসেরার পুরষ্কার হাতে নিয়ে কি জানান দিচ্ছেন তাসকিন?
/অনন/৩৫

সর্বশেষ

Leave a Reply