• বিশাল কুঁড়ি

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিবহনে শৃঙ্খলা ফেরাতে শীঘ্রই নীতিমালা করা হবে বলে জানিয়েছেন পরিবহন পুলের প্রধান উপদেষ্টা ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোঃ এমদাদুল হক।

তিনি বলেন, ‘আমাদের পরিবহন বিষয়ক কোন স্পষ্ট নীতি মালা ছিলোনা। এখন নীতিমালা তৈরির কাজ চলছে। আগামী সিন্ডিকেটের আগেই এই নীতিমালা আমরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের নিকট জমা দিবো। এটি পাশ হলে বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিবহনে অনেকাংশে শৃঙ্খলা ফিরে আসবে।’

এমদাদুল হক বলেন, ‘উপাচার্য স্যার বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগদানের পরপরই পরিবহন সংকট সমাধানে সচেষ্ট হন। তারই ধারাবাহিকতায় পরিবহন পুল গঠন করেন এবং লোকবল নিয়োগ দেন। উপাচার্য স্যারের অক্লান্ত প্রচেষ্টায়, শিক্ষার্থীদের জন্য নতুন তিনটি বাস, শিক্ষকদের জন্য দুইটি মাইক্রোবাস, সার্বক্ষণিক মেডিকেল সুবিধার জন্য নতুন একটি অ্যাম্বুলেন্স, একটি পিকআপ ভ্যান ও একটি জিপ পরিবহন পুলে যুক্ত হয়। যা ছাত্রছাত্রীদের যাতায়ত নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কার্যক্রমকে আরও গতিশীল করবে বলে আমি মনে করি।’


পরিবহনে সামনে কি কি যুক্ত হতে যাচ্ছে এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘উপাচার্য স্যারের নির্দেশে সামনে শিক্ষকদের যাতায়াত সংকট নিরসনে নতুন একটি এসি মিনিবাস এবং ছাত্রছাত্রীদের জন্য আরো দুইটি নতুন বাস আনার কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন আছে। যা বাস্তবায়ন হলে ছাত্র শিক্ষকদের পরিবহন সংকট অনেকটাই নিরসন হবে বলে আমি মনে করি।’

পরিবহন পুলের কার্যক্রম সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘করোনাকালীন ছুটির আগেই আমরা বিভিন্ন রুটে বাস সংখ্যা বাস বৃদ্ধি করেছি, বাস রুটের নামকরণ করেছি এবং ড্রাইভার, হেলপারদের দিক নির্দেশনা দিয়েছি।

ভাড়ায় চালিত বিআরটিসি বাস কতৃপক্ষের সাথেও ছাত্রছাছাত্রীদের সমন্বয়ে কয়েকদফা মিটিং করে পরিবহন সংকটের সমাধানের চেষ্টা করেছি। তাছাড়া ছাত্রছাত্রীদের জন্য ছুটির দিনে শহরে যাতায়াতের বাস দেয়া হয়েছে, রাতের বেলা ক্যাম্পাস অভিমুখী বাসের সংখ্যা বৃদ্ধিকরা হয়েছে।’

আরও পড়ুন  যা যা বলেছি সব আসবে, তোমরা শুধু লেখাপড়া করো’- কুবি উপাচার্য

তবে বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিবহনের অন্যতম বড় সংকট লোকবল নিয়োগ। এই ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘উপাচার্য স্যারের দিকনির্দেশনায় নতুন বাসের ড্রাইভার ও হেলপার নিয়োগের চেষ্টা চালানো হবে। আমাদের একটি পুরনো বাস সংস্কারের অভাবে অচল ছিল। করোনার বন্ধ চলাকালীন আমরা এটিকেও শিক্ষার্থী বহরে যুক্ত করার জন্য সংস্কার করেছি।’

পরিবহনের পার্কিং সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘আগে আমাদের পরিবহনগুলোর জন্য কোনো পার্কিং শেড ছিলো না। বাইরে রাখায় অনেক সমস্যা হতো। এখন বিশ্ববিদ্যালয়ে সুন্দর পরিবহন গ্যারেজও হয়েছে।

আগে দিনের বেলা শিক্ষার্থী উঠানামার জন্য একাডেমিক ভবনের সামনে বাস রাখা হতো যা শিক্ষার্থীদের একাডেমিক পরিবেশ নষ্ট করত। তাই আমরা কেন্দ্রীয় মাঠের কাছে দিনে বাস পার্কিং এর আলাদা জায়গা করেছি।’

পরিবহন পুলের প্রধান উপদেষ্টা শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘মাননীয় উপাচার্য স্যার তথা আমরা শিক্ষার্থীদের ব্যাপারে আন্তরিক। ছাত্রছাত্রীরা যেন ধৈর্য ধারণ করেন এবং বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উপর আস্থা রাখেন। পাশাপাশি যে কোনো অসুবিধায় যেন তারা আমাদের জানান।

শিক্ষার্থীদের প্রতি তিনি অনুরোধ জানান, এই বাসগুলো তাদেরই ব্যবহারের জন্য এবং জাতীয় সম্পদ। তাই তারা যেন সেগুলো যত্ন ও আন্তরিকতার সাথে ব্যবহার করে।

উল্লেখ্য, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বহরে গতকাল ২৪ সেপ্টেম্বর তিনটি নতুন নীল বাস যুক্ত হয়েছে। এই বাসগুলো যুক্ত হওয়ায় শিক্ষার্থীদের যাতায়াত আরও সহজ হবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

/এস এন

Leave a Reply