ক্যাম্পাসকে আরও সুন্দর করতে বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করবো: কুবি উপাচার্য 

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের একমাত্র পরিবেশ বিষয়ক সংগঠন ‘অভয়ারণ্য কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়’ এর পরিবেশ সচেতনতা সপ্তাহ-২০২২ এর কার্যক্রম শেষ হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৯ জুন) সমাপনী অনুষ্ঠানে বৃক্ষরোপণ, আলোচনা সভা ও পরিবেশ বিষয়ক চলচ্চিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করে সংগঠনটি।

ক্যাম্পাসকে আরও সুন্দর করতে বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করবো: কুবি উপাচার্য 

৫ জুন থেকে শুরু হওয়া কর্মসূচির প্রথম দিনে বিশ্ববিদ্যালয়ের পার্শ্ববর্তী শালবন বিহার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আয়োজিত এক ক্যাম্পেইনে পরিবেশ বিষয়ক আলোচনা ও কুইজ প্রতিযোগিতার পাশাপাশি পুরস্কার হিসাবে গাছ বিতরণ করা হয়।

 

শেষ দিনের কর্মসূচি উদ্বোধন করে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এফ এম আবদুল মঈন বলেন, পরিবেশ সচেতনতায় আমাদের সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। দূষণ নিয়ন্ত্রণের জন্য বেশি বেশি গাছ লাগাতে হবে। আমাদের ক্যাম্পাস প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে পরিপূর্ণ, এই সৌন্দর্য রক্ষা করা আমাদের দায়িত্ব। পরিবেশ বাঁচাতে সম্মিলিত প্রচেষ্টা দরকার।

 

তিনি আরও বলেন, কাজের ব্যস্ততায় অনেকটা সময় আমাকে অফিস কক্ষে অবস্থান করতে হয়। পরিবেশ-প্রকৃতি নিয়ে এমন আয়োজনে আসতে পারলে তাই বেশ ভালো লাগে। ক্যাম্পাসটাকে আরও সুন্দর করার জন্য আমি অভয়ারণ্য কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়সহ সবাইকে সাথে নিয়ে বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করবো।

 

এবিষয়ে সংগঠনটির উপদেষ্টা ড. মুহম্মদ সোহরাব উদ্দীন বলেন, অভয়ারণ্যের কাজের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয় আরো সুন্দর করে সাজানো সম্ভব। সবুজ ক্যাম্পাস করা কঠিন কিছু না। শুধু সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।

 

এতে আরও ছিলেন প্রক্টর কাজী ওমর সিদ্দিকী, আইকিউএসি-এর পরিচালক অধ্যাপক ড. মোঃ রশিদুল ইসলাম শেখ, সংগঠনটির উপদেষ্টা ড. মুহাম্মদ সোহরাব উদ্দীন।

 

বৃক্ষরোপন শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সাধারণ সম্পাদক সাফায়িত সিফাতের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি সাজ্জাদ বাসার। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির সহ-সভাপতি ইশতিয়াক আহমেদ, যুগ্ম সম্পাদক মোহন চক্রবর্তী, অর্থ সম্পাদক আবদুল্লাহ আল সিফাত ও বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

 

সংগঠনটির সভাপতি সাজ্জাদ বাসার বলেন, একটি দেশের ২৫ শতাংশ বনভূমি থাকা প্রয়োজন এতে করে প্রাকৃতিক বিপর্যয় থেকে রক্ষা পাওয়া সম্ভব। কিন্তু আমাদের দেশে সে তুলনায় বনভূমি অনেক কম। আমরা যদি পরিবেশ রক্ষায় এগিয়ে না আসি, পরিবেশ নিয়ে চিন্তা না করি তাহলে ভবিষ্যৎ আমাদের জন্য সুখকর হবে না। সবার কাছে আমার উদ্যত আহ্বান, পরিবেশ নিয়ে যেন আমরা আরো সচেতন হই।

সর্বশেষ

Leave a Reply