‘তিন শিক্ষকের প্রতি অপেশাদারিত্বসুলভ আচরণ করছে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়’

সম্প্রতি খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে ( খুবি) শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে সমর্থন দেওয়ার কারণে তিন শিক্ষককে অপসারণ প্রক্রিয়ার ঘটনায় তাদের প্রতি খুবি প্রশাসন অপেশাদারিত্বসুলভ আচরণ করছে বলে অভিমত ব্যক্ত করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারপারসন অধ্যাপক ড. কাবেরী গায়েন ও কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও পিএইচডি গবেষক এন.এম. রবিউল আওয়াল চৌধুরী।

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) এমসিজে নিউজের ‘শিক্ষার্থীদের আন্দোলন ও শিক্ষকদের নৈতিক দায়িত্ব’ শীর্ষক ফেসবুক লাইভ আলোচনা অনুষ্ঠানে এ অভিমত দেন তারা।

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের প্রভাষক কাজী আনিছের সঞ্চালনায় খুবির তিন শিক্ষক ও দুই শিক্ষার্থীকে বহিষ্কারের প্রসঙ্গে কাবেরী গায়েন বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের মৌলিক চাহিদা দাবি করাটা যৌক্তিক, আর শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক দাবিগুলা সমর্থন করাই বরং একজন শিক্ষকের উচিত।

একই প্রসঙ্গে এন. এম. রবিউল আউয়াল চৌধুরী বলেন, ‘শিক্ষার্থী যদি সঠিক আচরন করে এবং শিক্ষক যদি তার সাথে সহমত পোষণ করে সেটা উস্কানি কিভাবে হয় এটা আসলে ভাবার বিষয়।’

পুরো আলোচনাটি দেখুন এখানে

https://m.facebook.com/story.php?story_fbid=117916743538592&id=974247016114852

অধ্যাপক কাবেরী গায়েন বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় হবে বিশ্বের সমস্ত জ্ঞানের উন্মুক্ত একটি জায়গা, যেখানে জ্ঞান বিজ্ঞানের কথা হবে,স্কুল অব থটসের কথা হবে৷ শিক্ষক ছাত্রের বিতর্ক হবে এবং সেখানে থাকবে না কোনো অস্ত্রের ঝনঝনানি এবং জ্ঞানের চর্চা হবে।’

এন.এম. রবিউল আওয়াল চৌধুরী আরও বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো জানালা দরজা থাকবে না। এটা হবে এত বেশি খোলা যে, যেকোনো দিক থেকে যেকোনো কিছু আসতে পারবে।সকল ভিন্নতাকে আসতে দিতে হবে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশের প্রসঙ্গে ড. কাবেরী গায়েন বলেন,’বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে এমন একটা জায়গা যেখানে আমি কথা বলতে পারবো, শিক্ষার একটা লেনদেন থাকবে এবং জ্ঞানের উন্মুক্ত চিন্তার একটা পরিসর হয়ে উঠবে।’

এছাড়াও আলোচনায় দেশের বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক পরিবেশ,মান,শিক্ষক-শিক্ষার্থীর সম্পর্ক ইত্যাদি বিষয় উঠে আসে।

/পিয়া

সর্বশেষ

Leave a Reply