পূর্বঘোষিত সময়ে খুলছে না বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হল

দেশে বিদ্যমান করোনা পরিস্থিতিতে আগের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ১৭ মে আবাসিক হল খুলে দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরা৷

 

বুধবার বর্তমান পরিস্থিতিতে পূর্বঘোষিত সূচি অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয় খোলা যাবে কি না, তা ঠিক করতে উপাচার্যদের আয়োজিত এক বৈঠক থেকে এমন সিদ্ধান্ত আসে৷

 

অনলাইন গণমাধ্যম ঢাকা পোস্টের বরাতে জানা যায়,

এই বৈঠকে বর্তমান পরিস্থিতিতে করণীয় সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নিতে গিয়ে দ্বিধাবিভক্ত হয়ে পড়েন উপাচার্যরা৷

 

বৈঠকে উপস্থিত উপাচার্যরা জানান, বর্তমান করোনা পরিস্থিতির কথা বিবেচনায় রেখে ১৭ মে আবাসিক হল খুলে দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না । একই সঙ্গে আগামী জুন থেকে শুরু হওয়ার কথা থাকলেও বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ২০২০-২১ সালের স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা যথা সময়ে অনুষ্ঠিত হবে না বলেও বৈঠক থেকে জানানো হয়।

 

তবে বন্ধ থাকা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কার্যক্রম স্বাভাবিক রাখতে অনলাইনে পরীক্ষা নেওয়া যায় কি না তা নিয়েও পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে বলে জানা গেছে। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয় খোলা এবং অনলাইনে পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিতে আগামীকাল বৃহস্পতিবার ইউজিসির সঙ্গে উপাচার্যদের আরেকটি বৈঠক রয়েছে।

 

বৈঠকে উপস্থিত উপাচার্য পরিষদের সদস্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মুনাজ আহমেদ নূর বলেন, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর বর্তমান অবস্থা এবং ভবিষ্যৎ করণীয় নিয়ে আমাদের উপাচার্যদের মধ্যে বৈঠক হয়েছে। তবে বিশ্ববিদ্যালয় খোলার বিষয়ে চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। এখন পর্যন্ত পূর্বের সিদ্ধান্ত বহাল রয়েছে।

 

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি দেশের সকল সরকারি বা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আগামী ২৪ মে খুলে দেওয়ার ঘোষণা দেন৷

 

আর এক সপ্তাহ আগে ১৭ মে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর আবাসিক হল খুলে দেওয়া হবে বলে জানান৷ তবে তার আগে অবশ্যই বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর হলের আবাসিক শিক্ষার্থী, আবাসিক হলের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের টিকার ব্যবস্থা করা হবে বলেও জানিয়েছিলেন তিনি।

সর্বশেষ

Leave a Reply