Monday, January 25, 2021

‘বঙ্গবন্ধুর প্রত্যাবর্তনে স্বাধীনতা পরিপূর্ণ হয়েছিলো’

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত হয়েছে।

দিবসটি উপলক্ষে আজ রোববার (১০ জানুয়ারি) সকাল ১০.৪০টায় বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের পক্ষ থেকে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করে শ্রদ্ধা জানান বিশ্ববিদ্যালয়টির উপাচার্য প্রফেসর ড. এমরান কবির চৌধুরী।

এর আগে সকাল ১০.৩০ টায় উপাচার্যের নেতৃত্বে একটি আনন্দ র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। র‌্যালিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন থেকে শুরু হয়ে ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতির পাদদেশে এসে শেষ হয়।

পরে প্রতিকৃতির পাদদেশে অনুষ্ঠিত সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় উপাচার্য প্রফেসর ড. এমরান কবির চৌধুরী বলেন, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের একক নেতৃত্বে বাংলাদেশ স্বাধীনতা লাভ করেছিলো ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর। কিন্তু প্রকৃত অর্থে স্বাধীনতাটি ছিল অসম্পূর্ণ।

 

'বঙ্গবন্ধুর প্রত্যাবর্তনে স্বাধীনতা পরিপূর্ণ হয়েছিলো'
স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আয়োজিত র‍্যালি

সেই স্বাধীনতাটিই পরিপূর্ণ হয়েছিলো আজকের এই দিনে অর্থাৎ ১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধু’র স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের মাধ্যমে। সে জন্যই আমাদের নিকট এই দিনটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একজন কর্মী। আমাদের প্রাণ প্রিয় নেত্রী, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার কর্মী হিসেবে আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে ধারণ ও লালন করি।

বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে অনুসরন করে যার যার দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়কে এগিয়ে নিতে সবাইকে আহবান জানান উপাচার্য।’

আলোচনা সভায় ট্রেজারার অধ্যাপক ড. মোঃ আসাদুজ্জামান বলেন, ‘১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিুবর রহমান বাংলাদেশের মাটিতে প্রত্যাবর্তনের পরে রেইসকোর্স ময়দানে প্রায় ২০ মিনিট বক্তৃতা দিয়েছেন। সেই বক্তৃতা শোনার জন্য আপনাদের প্রতি আহবান জানাচ্ছি।

বঙ্গবন্ধু তাঁর বক্তৃতায় বাঙালি জাতি, স্বাধীনতার পূর্বে স্বাধীনতা যুদ্ধে যাঁরা সংগ্রাম করেছেন তাঁদের প্রতি সালাম জানিয়ে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেছেন এবং কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

আনন্দে আত্মহারা লাখো জনতা এই দিনটিতে বিমানবন্দর থেকে রেইসকোর্স ময়দানে পর্যন্ত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বতঃস্ফূর্ত সংবর্ধনা জানিয়েছিলো।’

তিনি আরও বলেন, ‘এ দেশের মানুষের প্রতি বিশ্বাস, ভালবাসা এবং তাঁর নেতৃত্বের কারণে এই বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে।’

স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ড. মোঃ আবু তাহের, বিভিন্ন অনুষদের ডিন, শিক্ষক সমিতির সভাপতি, প্রক্টরসহ শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ।

সর্বশেষ

Leave a Reply