Wednesday, January 20, 2021

বাসে মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি, অভিযানে কুমিল্লার প্রশাসন

শাহরিয়ার নোবেল
কুমিল্লা থেকে ঢাকা ও চট্টগ্রামগামী যাত্রীবাহী বাস এবং কুমিল্লার অভ্যন্তরে চলা বাসগুলোতে সরকার নির্ধারিত দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না বলে অভিযোগ উঠেছে।
যাত্রীদের অভিযোগ, বাসগুলো পথে পথে গাদাগাদি করে যাত্রী উঠাচ্ছে। নেওয়া হচ্ছে অতিরিক্ত ভাড়া। জীবাণুনাশক কোনো স্প্রেও দেওয়া হচ্ছে না। এর প্রতিবাদ করতে গেলে যাত্রীদের হুমকি-ধামকি ও নানান হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে।
এসব অভিযোগ ওঠার পর নতুন করে অভিযানে নামছে কুমিল্লা জেলা প্রশাসন। জানতে চাইলে কুমিল্লা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবু সাইদ এমসিজে নিউজকে বলেন, ‘বাস যথানিয়মে স্টেশন থেকে ছেড়ে গেলেও মাঝপথে গিয়ে যাত্রী তুলছে। ফলে, চলতি বাসটিকে আর ধরা যাচ্ছে না। এ জন্য আমরা ভ্রাম্যমাণ আদালতের একটি টিমকে এখন হাইওয়ে পুলিশের সাথে অভিযান চালানোর জন্য যুক্ত করে দিয়েছি।’
বাস চলাচলে সরকারের ১২ শর্তের মধ্যে বাস স্টেশনে ভীড় না করা, স্টেশনে পর্যাপ্ত হাত ধোয়ার ব্যবস্থা রাখা, যাত্রী, চালক, সহকারী ও কাউন্টারকর্মীদের মাস্ক পরিধান, আসন বিন্যাসে দূরত্ববিধি মেনে চলা, যাত্রার শুরু ও শেষে জীবাণুনাশক স্প্রে ব্যবহার করা উল্লেখযোগ্য।
কিন্তু সম্প্রতি বিভিন্ন বাসস্ট্যান্ড ঘুরে ও কয়েকজন যাত্রীর সঙ্গে কথা বলে এ নিয়মগুলো মানার ব্যাপারে সংশ্লিষ্টদের গা-ছাড়া ভাব লক্ষ করা গেছে। এসব নিয়ম শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত বাসগুলোতে মানার প্রবণতা থাকলেও অন্য বাসগুলোতে মানা হচ্ছে না বলে যাত্রীদের অভিযোগ।
তবে উভয় বাসের কয়েকটির বিরুদ্ধে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগ আছে। একই সঙ্গে দূরত্ববিধি ও স্বাস্থ্যবিধি না মেনে অতিরিক্ত যাত্রী ও ভাড়া আদায়েরও অভিযোগ পাওয়া গেছে।
যাত্রীদের অভিযোগ, ঈদের আগে নির্ধারিত দুই আসনে একজন করে যাত্রী পরিবহনের নিয়ম সংশ্লিষ্টরা মেনে চলেছিলেন। কিন্তু ঈদ চলাকালীন ও পরে তা আর মানছেন না। বাসস্ট্যান্ড থেকে দুই আসনে একজন করে যাত্রী নিলেও মাঝপথে অতিরিক্ত যাত্রী উঠানোয় পাল্টে যায় দৃশ্যপট।
কুমিল্লার আলেখারচর এলাকাসহ আশপাশের এলাকার অস্থায়ী কাউন্টারগুলো থেকে ঢাকাগামী বাসগুলোর চালক ও চালকের সহযোগীদের বিরুদ্ধে অতিরিক্ত যাত্রী বহনের অভিযোগ বেশি।
এছাড়া কুমিল্লার অভ্যন্তরে চলাচলকারী কয়েকটি বাসের বিরুদ্ধেও এমন অভিযোগ করেছেন যাত্রীরা। আহমেদ সোহাগ নামের এক বাসযাত্রী অভিযোগ করেন ‘ঢাকা থেকে কুমিল্লা আসতে দুই সিটের ভাড়া দিয়েছি। কিন্তু মাঝপথে তার কিছুই ঠিক ছিল না। জায়গায় জায়গায় যাত্রী উঠিয়েছে। দাঁড়িয়েও যাত্রী নিয়েছে। কিছু বললে বলে, যাত্রীরাই ওঠে যায়।’

বাসে মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি, অভিযানে কুমিল্লার প্রশাসন
কুমিল্লার বিভিন্ন বাসে নিয়ম ভেঙে অধিক যাত্রী নেওয়ার চিত্র।

সোহেল নামের শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এক বাসের যাত্রী বলেন, ‘অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের প্রতিবাদ করায় বাসের সহকারী এক যাত্রীকে হুমকি-ধামকি দিয়ে নামিয়ে দিয়েছে।’
আল মামুন মনি নামের এক যাত্রী অভিযোগ করেন, তার কাছ থেকে বাস ভাড়া ১৬০ টাকার জায়গায় ৩০০ টাকা নেওয়া হয়েছে। তবু, প্রতি আসনে যাত্রী উঠানো হয়েছে।
নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবু সাঈদ বলে, ‘ঈদের আগে এসব সমস্যা ছিল না। ঈদকে কেন্দ্র করে শুরু হয়েছে। অনিয়মের বিরুদ্ধে আমরা ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করছি।’
অভিযোগের ব্যাপারে জানতে চাইলে কুমিল্লা বাস মালিক সমিতির মহাসচিব তাজুল ইসলাম দাবি করেন, কোনো অতিরিক্ত ভাড়া নেওয়া হচ্ছে না। সরকার নির্ধারিত সব নিয়মই মানা হচ্ছে। তবে, কারো বিরুদ্ধে নিয়ম লঙ্ঘনের অভিযোগ পাওয়া গেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সর্বশেষ

Leave a Reply