রোহিঙ্গা মুসলিমকে মিয়ানমারের জাতীয় নির্বাচনে দাঁড়াতে বাধা

0
25

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

মিয়ানমারে আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে একজন রোহিঙ্গা মুসলিমকে দাঁড়াতে বাধা দেয়া হয়েছে। বাধা পাওয়া সেই ব্যক্তির নাম আবদুল রশিদ।

রোহিঙ্গা সংখ্যালঘুদের অধিকার নিয়ে কাজ করা আবদুল রশিদ আঞ্চলিক পর্যবেক্ষক সংস্থা ফোর্টিফাই রাইটসকে জানিয়েছেন, আসন্ন নির্বাচনে পদপ্রার্থী হতে চেয়েছিলেন তিনি। তবে প্রার্থী হওয়া থেকে তাকে বঞ্চিত করা হয়েছে।

এমন খবর প্রকাশ করেছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ‘আল জাজিরা’। মানবাধিকার সংস্থাগুলো বলছে, এই ঘটনা রোহিঙ্গাদের প্রতি বৈষম্যমূলক আচরণ এবং সংখ্যালঘু নির্যাতনের আরেকটি উদাহরণ।

তবে শুধু আবদুল রশিদের বেলাতেই যে এমনটি ঘটেছে তা নয়। আঞ্চলিক পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা ফোর্টিফাই রাইটস বলছে, রোহিঙ্গা নেতৃত্বাধীন তিনটি দল নভেম্বরে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া জাতীয় নির্বাচনে প্রায় ডজন খানেক প্রার্থীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করানোর প্রত্যাশা করেছিলো।

কিন্তু এখনো প্রায় ৬ লাখ রোহিঙ্গা মিয়ানমারে রয়ে গেছেন। যাদের বেশিরভাগই দেশটির নাগরিক হিসেবে গণ্য হন না। ফলে তাদের কোনো ভোটাধিকার নেই বলে জানিয়েছে দেশটির সরকার।

এমন বক্তব্যকে ‘বর্ণবাদী’ বলে আখ্যা দিয়েছে মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। ২০১৭ সালে রোহিঙ্গা মুসলমান অধ্যুষিত রাখাইনে রোহিঙ্গাদের উপর নির্যাতন শুরু করে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। ফলে প্রায় দশ লাখ রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে চলে আসে।

এ বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে কোনো মন্তব্য করেনি দেশটির নির্বাচন কমিশন।

 

 

Leave a Reply